1. multicare.net@gmail.com : সময়ের পথ :
শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন

নওগাঁয় ছোটভাইয়ের সম্পত্তিতে বড়ভাইয়ের জোরপূর্বক পুকুর খননের অভিযোগ

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শনিবার, ২৩ জুলাই, ২০২২
  • ১১ বার পড়া হয়েছে

নওগাঁয় ছোটভাইয়ের সম্পত্তিতে বড়ভাইয়ের জোরপূর্বক পুকুর খননের অভিযোগ

এ.বি.এম.হাবিব – নওগাঁ।  সদর উপজেলার বলিহার ইউনিয়নের পয়না বাজারের মন্ডল পাড়ায় পৈতৃক প্রায় ২০বিঘা ৩ ফসলি জমিতে বড় দু,ভাই জোর পূর্বক স্কেপেটর (ভিকু) মেশিন দিয়ে পুকুর খননের অভিযোগ করেছে ছোটভাই মোঃ কাবুল হোসেন।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, মৃত- খোশ মোহম্মদের তিন ছেলে, ৩ মেয়ে। মোঃ শাহাজান আলী,মোঃ আব্দুল জব্বার ও মোঃ কাবুল হোসেন। এদের মধ্য শাহাজাহান ও জব্বার সবার ছোটভাই কাবুল হোসেনকে বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি ও হত্যার হুমকি দিয়ে জোর-জবরদস্তি করে প্রায় ২০ বিঘা ৩ ফসলি জমিতে পুকুর খনন করছে।

কাবুল হোসেন অভিযোগ করে জানায়, পৈতৃক সম্পত্তি তো আছেই, তার পাশে তার নিজেস্ব ক্রয়কৃত ৭৮শতাংশ ধানী জমিও আছে। তারা দু,ভাই জবর-দখল করে পুকুর খননের কাজ শুরু করেছে। অভিযোগ পেয়ে সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পান। সেখানে বহু লোকজনকে সাথে নিয়ে বড় দু,ভাই পুকুর খনন করছে ও পুকুরের মাটি পার্শবর্তী মৈনম ইউনিয়নের জয়কালি ইটভাটায় বিক্রয় করছে।

এ বিষয়ে কাবুলের ভাই, শাহাজান ও জব্বারকে জিজ্ঞেসা করলে তারা জানায়, তাদের পিতা, তাদের নামে উইল করে দিয়েছে এই জমি। কাবুলের ৭৮শতাংশ ক্রয়কৃত জমিও এখানে আছে এমন প্রশ্নে তারা বলে, যদি তার কাগজপত্র ও দলিল থাকে অবশ্যই তা বের করে দেওয়া হবে। আর এ বিষয় নিয়ে একাধিকবার স্থানীয় ভাবে বসা হয়েছে কিন্তু কোন সুরাহা হয়নি বলে তারা জানায়।

এদিকে কাবুল জানায়,তার দু,ভাই কোন কাগজপত্র বা দলিল দেখাতে পারে নাই। আপোষের জন্য স্থানীয় ভাবে বসা হলে শুধু মারতে উঠে। তাকে কোন কথায় তারা বলতে দেওয়া হয় না। এবং ভুক্তভোগী কাবুল আরো জানায়, তার বাবার জমি এবং তার নিজে ক্রয় কৃত জমিতে এভাবে জোট-পূর্বক পুকুর খনন বিষয়ে নওগাঁ সদর ইউএনও, এসিল্যান্ড এবং জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এখন পর্যন্ত তার দু,ভাই পুকুর খনন করতেই আছে। ভুক্তভোগী কাবুল এর সুষ্ঠ বিচার চেয়ে প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন।

এ বিষয়ে নওগাঁ জেলা প্রশাসক মেহেদী হাসান এর সাথে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান, এ বিষয়ে ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে। পরবর্তীতে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বলিহার ভুমি অফিসের লোক পাঠিয়ে সেখানে পুকুর খনন বন্ধ করে দেয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট