1. multicare.net@gmail.com : সময়ের পথ :
বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৩:৩৮ পূর্বাহ্ন

কুলাউড়ায় সুখের আশায় বাবার জায়গা বিক্রি করে স্বামীকে প্রবাসে পাঠান, সেই মহিলা এখন বাড়ি ছাড়া।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: সোমবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২২
  • ২৯ বার পড়া হয়েছে

কুলাউড়ায় সুখের আশায় বাবার জায়গা বিক্রি করে স্বামীকে প্রবাসে পাঠান, সেই মহিলা এখন বাড়ি ছাড়া।

মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ
মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার ১২নং পৃথিমপাশা ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের সদপাশা গ্রামের মৃত ময়না মিয়ার মেয়ে সালমা বেগমের বিয়ের পর সুখের আশায় স্বামীকে বাপ দাদার জায়গা, জমি বিক্রি স্বামীকে প্রবাসে পাঠান। সেই স্বামী দেশে ফিরে দ্বিতীয় বিয়ে করে প্রথম স্ত্রী সালমা বেগমকে বাড়ি থেকে বের করে দেন। পিতা মাতাহীন অসহায় সালমা বেগম আশ্রয় হয়েছে বোনের বাড়িতে। এমন অসহায় সালমা বেগমের পাশে জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের সহানুভূতি হবে কি।

সরেজমিন এলাকায় গিয়ে যানা যায় কুলাউড়া উপজেলার পৃথিমপাশা ইউনিয়নের বর্তমানে ৬ নং ওয়ার্ডের ইউসুফ সদর দুলাভাইয়ের বাড়িতে থাকেন সালমা বেগম, স্বামীর বাড়ী মনরাজ গ্রামের নাম মিরজান আলী পিতা আতর আলী, দুই বছর ধরে খবর রাখেন না স্ত্রী সালমা বেগমের, মিরজান আলী উনি আরেকটা বিবাহ করেন স্ত্রীর খোঁজ খবর না রেখে

সালমা বেগমের, দুলাভাই আব্দুল করিম, বলেন সালমারে মা বাবা মারা যাওয়ার পরে আমার বাড়ি থাকেন সালমা পরে আমার শালির সাথে ২০০৪ সালে বিবাহ হয় পরে মিরজান সাথে ইঞ্জিনিয়ারিং কাজ করতো বিবাহর কিছুদিন পরে আব্দুল করিম বলেন আমার শালির বাবার জায়গা বিক্রি করার জন্য মিরজান উঠে পড়ে লেগেছে পরে সালমা বেগম এই জায়গা বিক্রি করে বিদেশ পাঠানো স্বামী কিছুদিন প্রবাসে থাকা পরে ২০১৬ সালে মিরজান দ্বিতীয় বিবাহ করেন প্রথম স্ত্রীকে বলেন তুমি রাজি হয়ে যাও না হলে সমস্যা হবে স্ত্রী সালমা বেগম ভয় পেয়ে রাজি হয়ে যান সালমা বেগমের দুইটি ছেলে রয়েছে

সালমা বেগম বলেন আমার স্বামীকে আমার বাপ দাদার জায়গা বিক্রি করে বিদেশ পাঠিয়েছে এখন আমার খোঁজ খবর রাখেন না টাকাপয়সা পাঠান না দীর্ঘদিন হয়ে গেছে আমি খুব অসহায়

এলাকার মুরুব্বি সাদেকুল ইসলাম বলেন প্রথম স্ত্রীকে ছেড়ে দ্বিতীয় বউকে নিয়ে অনেক ব্যস্ত মিরজান, সাদেকুল ইসলাম আরো বলেন যে আমরা এলাকাবাসী সুষ্ঠু বিচার চাই সালমা বেগম বড় অসহায় এক মহিলা

মিরজান বলেন কয়মাস টাকা দিয়েছে কুলাউড়া উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পপি চৌধুরী ও ১২নং পৃথিমপাশা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নবাব আলী হাসনাইন(বাকর খান) উনাদের মাধ্যমে আমি টাকা দিয়েছি

কুলাউড়া উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পপি চৌধুরী বলেন মিরজান টাকা দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে সেটা আমরা জানি না আরো বলেন সালমা বেগম উপজেলা এসে লিখিত কোন অভিযোগ দিলে উপজেলা চেয়ারম্যানসহ আমরা এই বিষয়টি দেখবো

প্রতিবেদককে হুমকি দিচ্ছেন মিরজান নিউজ না করার জন্য খারাপ ভাষায় গালাগালি করেন ও মামলার ভয় দেখাচ্ছেন

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট