1. multicare.net@gmail.com : সময়ের পথ :
শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৯:৪৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক গাফফার চৌধুরীর মৃত্যুতে ভোরের কাগজের প্রকাশক ও সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলায় আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন-এর নিন্দা জীবন দিয়ে হলেও মদের আইন বাতিল সহ ১৫ দফা দাবি আদায় করবো লামায় সমাজের সর্দার নির্বাচিত হয়েছে ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি ইয়াছিন লক্ষ্মীপুরে অষ্টম শ্রেণির স্কুলছাত্রী অপহরণ, গ্রেপ্তার ১ রামগড়ে বিপজ্জনক মরাগাছ কেটে বিপাকে পাউবো কমর্চারি লক্ষ্মীপুরের ১৬০০ টন গম নিয়ে ডুবে গেল জাহাজ পুলিশের কব্জি বিচ্ছিন্নকারী নৃশংস কুখ্যাত সন্ত্রাসী আটক-র‍্যাব-৭। হরিণাকুণ্ডুতে সরককারী আবাসনে গোলোযোগ ৯ জন আহত হরিণাকুণ্ডুতে আবাসনের পুকুরে মাছ ধরাকে কেন্দ্রকরে ৯ জন আহত

অনুসন্ধানী রিপোর্ট নড়াগাতিতে থেমে নেই পিতা-পুত্রের রমরমা ইয়াবা বানিজ্য!

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: সোমবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২২
  • ৩৪ বার পড়া হয়েছে

অনুসন্ধানী রিপোর্ট
নড়াগাতিতে থেমে নেই পিতা-পুত্রের রমরমা ইয়াবা বানিজ্য!

কালিয়া নড়াইল প্রতিনিধিঃ
নড়াইলে কালিয়া উপজেলার নড়াগাতিজ থানার সরসপুর গ্রামে ইয়াবা চোরাচালানের শীর্ষ গডফাদার মোঃ আজিজুল হক শরীফের ছেলে রবিউল ইসলাম ওরফে সাদ্দাম শরীফ ও তার পিতা আজিজুল হক শরীফ।নিজ বাড়িতে বসে বিক্রি পিতা – পুত্র করছে এই নিষিদ্ধ ইয়াবা।
আমাদের অনুসন্ধানে বেড়িয়ে আসে অনেক তথ্য,জানা যায় মোঃ আজিজুল হক শরীফ বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন ফাউন্ডেশনের কালিয়া উপজেলা কমিটির সভাপতি মর্মে একটা কমিটি অনুমোদন আনে। সেই কমিটির আড়ালে তিনি ও তার ছেলে রবিউল ইসলাম ওরফে সাদ্দামকে দিয়ে ইয়াবা ব্যবসা করান। যেহেতু মানবাধিকার সংগঠনের সাইনবোর্ডের আড়ালে ইয়াবা ব্যাবসা করলে পুলিশের চোখকে ফাঁকি দিয়ে ব্যাবসা করা যাবে এই ভেবে। ২০২১ সালের ১৯ জানুয়ারি সোমবার র্যারের মাদক বিরোধী অভিযানে ১৫০ পিচ ইয়াবা সহ আজিজুল হক শরীফের বাড়ির সামনে থেকে তার পুত্র সাদ্দামকে আটক করে র্যাব- ৬ ( স্পেশাল কোম্পানির) খুলনার একটি অভিযানিক দল। দেড়মাস কারাবন্দী শেষে জামিনে বেরিয়ে আবার শুরু করে পিতা পুত্রের রমরমা মাদক ব্যাবসা। তার কিছুদিন পর নড়াইল জেলা গোয়েন্দা শাখা ( ডিবির) অভিযান পরিচালনা করে কিন্তু সাদ্দাম দৌড়ে অল্পের জন্য রক্ষা পেলে ও তার সহযোগি একজন ১৪০ পিচ ইয়াবাসহ আটক হয়। কিছুদিন নিরব থাকার পরে আবার নিজ বাড়িতে বসে ইয়াবা বিক্রি শুরু করে দেন সাদ্দাম শরীফ। আর তার পিতা আজিজুল হক শরীফ দেয় পাহারা।বাজারে পুলিশ দেখলেই পুত্রকে সতর্ক করে দেয়।
অনুসন্ধানে আরো বেড়িয়ে আসে, টেকনাফ থেকে আসে ইয়াবার বড়,বড় চালান।টেকনাফ হয়ে ঢাকায় আসে ইয়াবার চালান সেখান থেকে রিসিভ করে নিয়ে আসে পুত্র রবিউল ইসলাম সাদ্দাম।পরে নড়াইল,মোল্লাহাট,গোপালগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলায় বিক্রি করে এই নিষিদ্ধ ইয়াবা। স্কুল কলেজের ছেলেদের হাতে চলে যাচ্ছে সাদ্দামের ইয়াবা।ধংস হচ্ছে যুব সমাজ।ইয়াবা বিক্রির টাকায় নির্মান করছে আলিশান বাড়ি। এই মাদক ব্যাবসায়ীদের আইনের আওতায় এনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার দাবী জানান এলাকার সচেতন মানুষ।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট