1. multicare.net@gmail.com : সময়ের পথ :
শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭:৩৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
১৫ মিনিটের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড কুষ্টিয়া, দ্রুত অপসারণে মাঠে উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা ঝড়ে রেললাইনের উপর গাছ উবড়ে পরায় ৪ ঘন্টা বিলম্বে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস হরিনাকুণ্ডুতে অপহরণ মামলার আসামী পাভেল গ্রেপ্তার লামায় কমিউনিটি ক্লিনিকের সেবায় মুগ্ধ ফাইতংয়ের মানুষ রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক গাফফার চৌধুরীর মৃত্যুতে ভোরের কাগজের প্রকাশক ও সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলায় আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন-এর নিন্দা জীবন দিয়ে হলেও মদের আইন বাতিল সহ ১৫ দফা দাবি আদায় করবো লামায় সমাজের সর্দার নির্বাচিত হয়েছে ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি ইয়াছিন লক্ষ্মীপুরে অষ্টম শ্রেণির স্কুলছাত্রী অপহরণ, গ্রেপ্তার ১ রামগড়ে বিপজ্জনক মরাগাছ কেটে বিপাকে পাউবো কমর্চারি

নাগেশ্বরীতে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে খেজুর রসে তৈরি পাটালী গুড়

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: সোমবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ৬২ বার পড়া হয়েছে

নাগেশ্বরীতে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে খেজুর রসে তৈরি পাটালী গুড়

রুহুল আমিন রুকু, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ
বাজারে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে খেজুরের রসে তৈরি পাটালী গুড়। কুড়িগ্রামের নাগেশ^রীতে খেজুর গাছ থেকে রস নামিয়ে গুড় তৈরি করছেন গাছী আব্দুল গফফার। বাজারের চেয়ে দাম বেশি হলেও সাধারণ গুড়ের থেকে বেশি এ গুড়ের চাহিদা। সকাল হতেই উপজেলার নানা প্রান্ত থেকে মানুষ ভিড় জমায় গুড় কিনতে। এ গুড় যাচ্ছে অন্য জেলাতেও।
স্থানীয়রা জানায়, শীতের ভোরে শুরু হয় খেজুর গাছ থেকে রস নামানো। এরপর চুলায় টন্ডুল বসিয়ে তাতে রস জ্বাল দেয়ার আয়োজন। উত্তপ্ত আগুনে ৩ থেকে ৪ ঘণ্টা জ্বাল দিয়ে তৈরি হয় পাটালী গুড়। উপজেলার বাগডাঙ্গা তুলারভিটা এলাকায় এমন কর্মযজ্ঞ চলছে শীতের শুরু থেকে। স্বাদ ও মানে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এখানকার পাটালী গুড়। এ গুড়ের তৈরি পায়েস, শীতকালীন পিঠা ও নানা রকম আয়োজনে চলে মেহমানদারি। এছাড়াও প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষাকারী খেজুর গাছ হতে পারে দৃষ্টিন্দন এলাকার উপকরণ। তাই খেজুর গুড়ের ঐতিহ্য রক্ষায় সরকারি উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন বলেও মনে করেন স্থানীয়রা।
স্থানীয় সেকেন্দার আলী পাটোয়ারী, আব্দুল বাতেন বলেন ভেজাল গুড় না হওয়ায় তাদের এলাকার খেজুর রস এবং এ রসে তৈরি পাটালী গুড় বেশ জনপ্রিয়। এ গুড় দিয়ে তারা শীতকালীন নানা প্রকার পিঠা তৈরি করেন এবং আত্মীয়-স্বজন আসলে তাদেরকেও নানা প্রকার খাদ্য উপকরণ তৈরি করে মেহমানদারি করেন। গাছী আব্দুল গফ্ফার জানায়, অন্যান্য বছরের মতো এবারও শীত মৌসুমে রাজশাহীর বাঘা উপজেলা থেকে নাগেশ্বরীর বাগডাঙায় এসেছেন গুড় তৈরি ও বিক্রি করতে। মাসে আয় করছেন ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা। ঘন কুয়াশা আর প্রচন্ড ঠান্ডাতেও ভোর বেলা গাছ থেকে রস নামান তিনি। তার তৈরি পাটালি, দানা, ঝোলাসহ নানা প্রকারের গুড় বিক্রি হয় বাজারের চেয়ে দিগুণ দামে। তবুও চাহিদা মেটাতে পারছেন না বলেও জানান তিনি। তিনি বলেন, বর্তমানে বাজারে ভেজার গুড় পাওয়া যায় দেড়শ টাকা কেজিতে। তবে তার গুড়ে ভেজাল নেই। ভেজাল গুড় তৈরি করেন না তিনি। তার গুড়ের দাম বাজারের তুলনায় দ্বিগুন। তার গুড়ের দাম কেজি প্রতি আড়াইশ টাকা।
উপজেলা কৃষি অফিসার মো. শাহরিয়ার হোসেন বলেন, পাটালীগুড়ের গুনগতমান ভালো হওয়ায় বেশ জনপ্রিয়। তাই খেজুর গাছ বৃদ্ধি ও গাছের সঠিক পরিচর্যাসহ খেজুর গাছ বৃদ্ধি করতে কৃষকদের উৎসাহ প্রদানে ইউনিয়ন পর্যায়ে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের মাধ্যমে কৃষকদেরকে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট