1. multicare.net@gmail.com : সময়ের পথ :
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০২:৫৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
বিএসএনপিএস কমিটি গঠন:সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক সাধারণ সম্পাদক শামছুল আলম রামগড়ে বিজিবির ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে উন্নয়ন মাইলফলক। এফবিজেও’র বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ৪ঠা ডিসেম্বরের মহাসমাবেশ সফল করতে নগরীর চান্দগাঁও কাপ্তাই রাস্তার মাথায় প্রচারণা ও লিফলেট বিতরণ। নওগাঁ জেলায় প্রথম স্থানীয় প্রবীণ এবং উদীয়মান শিল্পীগন দের টেলিফিল্ম। চট্টগ্রাম চান্দগাঁও থানাধীন শুকতারা পত্রিকার দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উদযাপন। কক্সবাজার রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির দায়িত্বে চেয়ারম্যান মার্শাল ও এড. অপু স্মরনকালের সেরা জনসমুদ্রে রুপ নিবে চট্টগ্রামের মহাসমাবেশ- হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর। ফখরুজ্জামান চট্টগ্রামের নতুন জেলা প্রশাসক

সুবর্ণচরে কৃষকদের দুঃখ যেনো দেখার কেউ নেই‌‌‌

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৩ মে, ২০২২
  • ৭৭ বার পড়া হয়েছে

সুবর্ণচরে কৃষকদের দুঃখ
যেনো দেখার কেউ নেই‌‌‌

সাংবাদিক-রাশেদুল ইসলাম

নোয়াখালী জেলাধীন সুবর্ণচর উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় ঘূর্ণিঝড় আশনির প্রভাবে প্রচুর পরিমানে বৃষ্টি কারণে কৃষকরা ভালো করে ধান ঘরে তুলতে পারে নি। কেউবা ধান কর্তন করছে, কারো আবার ক্ষেতের ধান ক্ষেতে, মাঝ পথে ছিলো ঈদের মৌসুম শ্রমিকদের অভাব ছিলো পাওয়া যেতো না তেমন শ্রমিক। শ্রমিকদের বেতন ছিল- (৮০০-১০০০) টাকার ও বেশি, আর যেখানে ধানের মূল্য ছিলো ৬০০-৭০০ টাকা ।

গরীব অসহায় কৃষক যেখানে ধানের মূল্য পাইনা, অথচ নিত্য প্রয়োজনীয় সকল দ্রব্যের দাম দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। আমরা যেটা খেয়ে বাঁচি যেটার মুল্য এতো কম? ঘাম ঝরা রোদের মধ্যে সারা বেলা কাজ করে জমিতে ফসল ফলাই, আর সেই ফসলের পাইনা ন্যায্য দাম। আর এখন তো কৃষকের সব শেষ একদিকে শ্রমিকের বেতন বেশি আরেক দিকে ধান ক্ষেত ভাসছে পানিতে।

প্রতিবেদন কালে দেখা যায়- সুবর্ণচরের বিভিন্ন ইউনিয়নের কৃষকের ক্ষেতে ধান দেখা যাচ্ছে, আবার কারো কারো ধানের গাদায় ( ধানের স্থুপ) ক্ষেতের মাঝ খানে পানির উপরে ভাসছে, কয়েক জন কৃষকের সঙ্গে কথা বললে ওনারা জানান- আমরা মনে করছি ঈদের পর পরই ধান মড়াই কল দিয়ে ছাড়াই করবো কিন্তু এভাবে বৃষ্টি হবে কখনো কল্পনা করতে পারি নাই।কাতর কন্ঠে কৃষক বলে, একটা শ্রমিক ৯০০ টাকা বেতনে ধান কর্তন করছি,আর এখন সব হারা হয়ে গেলাম, জমির মাঝ- খানে এখন তো আর ধান মড়াই কল আসবে না। বিপাকে আছে দরিদ্র কৃষক, যাদের ধান ক্ষেতে এখনো তাদের সাথে কথা বললে – আমরা ঈদের আগে ধান কর্তন করতাম কিন্ত জমিতে পানি ছিলো আর৷ শ্রমিক সংকট, ছিলো চারদিকে তখন রমারম ধান কর্তন ছিলো। রোদের প্রভাব ও বেশ ভালো ছিলো কিন্তু রোদে মাঝে বৃষ্টি হবে এটা কখনো কল্পনা করতে পারি নি। আর এখন ধান ক্ষেত ভাসছে পানিতে। কয়েক জন শ্রমিকের সাথে কথা বললে – আমরা শ্রমিক আমরা টাকার বিনিময়ে ক্ষেতে খামারে কাজ করি,এই বছর এত টাকার বিনিময়ে কাজ করতে খুব আনন্দ লাগছে,কিন্তু দুঃখের ব্যাপার – যে হারে তেল, চিনি, এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যের দাম বাড়ছে এতে দৈনিক ১২০০ টাকা বেতনে কাজ করলে ও আমাদের পোসবে না। আমরা মাঠে ময়দানে – খাড়া রোদের মাঝে কাজ করে টাকা কামাই আর, আর দেশের ব্যবসায়ীরা বসে বসে দ্রব্য মূল্যের দাম বাড়াচ্ছে। স্থানীয়রা জানান, আমরা যতটুকু জানি এইবছর যারা এই মৌসুমে ধান চাষ করছে ৯০% লোকের ক্ষতি হয়েছে, পেলোনা ধানের দাম শ্রমিকের বেতন বেশি, আর সমস্যা হয়েছে সুবর্ণচরে অতিরিক্ত ধান চাষ করার কারণে,

স্থানীয় সমাজ কল্যাণবীদ রা জানান- শ্রমিকের বেতন বেশি শুনে অনেকে মিশিনের মাধ্যমে অনেক ধান কর্তন করছে। এতে অতি তাড়াতাড়ি ধান কর্তন সম্ভব হয়েছে। যাদের জমি শুকনো ছিলো তারা মিশিনে ধান কর্তন করতে পারছে। আর যাদের জমিতে পানি ছিলো তারা শ্রমিক দিয়ে যতটুকু সম্ভব ধান কর্তন করতে পারছে। সমাজ কল্যাণবীদরা আরো জানান- কৃষিবীদদের পরামর্শ ছাড়া এই মৌসুমে এই বছরের মতো কেউ যেনো ধান চাষ না করে।
…….

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট