1. multicare.net@gmail.com : সময়ের পথ :
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:১৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ আবৃত্তি প্রতিযোগীতায় প্রথম স্থান লাভ করেন জান্নাতুল মাওয়া। নওগাঁর মান্দায় ফকিন্নী নদী পুনঃখনন কাজের উদ্বোধন বগুড়া শান্তাহারে মানবিক সাহায্য সংস্থা নামের এনজিও কিস্তি না পেয়ে,মাথা ফাটিয়ে ক্যাসবক্স থেকে টাকা ছিনতাই মাকে হত্যা করে ফাঁসির নাটক সাজানোর অভিযোগ ছেলের বিরুদ্ধে নড়াগাতী থানা আওয়ামীলীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক হলেন মোঃ হাফিজুর রহমান বিপ্লব! চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের মোহাম্মদ মমিনুর রহমান এর সঙ্গে সার্ক মানবাধিকার সংগঠন এর নেতৃবৃন্দর সাক্ষাৎ। বাবর কে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আইয়ুব খান রাব্বী। “২৯ উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ” পলোগ্রাউন্ডে আঃমীলীগের জনসভায় জনতার ঢল উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলতে চাই-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

লাইনের সমস্যা ছিল না, বলছে রেলের প্রাথমিক তদন্ত! তাহলে দুর্ঘটনা কীভাবে

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২২
  • ১১৩ বার পড়া হয়েছে

লাইনের সমস্যা ছিল না, বলছে রেলের প্রাথমিক তদন্ত! তাহলে দুর্ঘটনা কীভাবে।                                                           রিপোর্টার কলকাতা থেকে শম্পা দাশ ও সমরেশরায় 

ময়নাগুড়ি: ভয়ানক ট্রেন দুর্ঘটনার কেটে গিয়েছে ২৪ ঘণ্টা। কিন্তু এখনও স্পষ্ট নয় যে কী ভাবে এই দুর্ঘটনা ঘটল। গতকাল রাতেই কলকাতায় পৌঁছন রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব। রাতেই হাওড়া থেকে বিশেষ ট্রেনে পৌঁছন ময়নাগুড়ি। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণ বলেন, “আমি নিজে সমস্ত বিষয় খতিয়ে দেখেছি। আচমকা যান্ত্রিক ত্রুটির জেরেই এই দুর্ঘটনা। ক্ষতিগ্রস্ত ইক্যুইপমেন্টগুলি সংগ্রহ করে ভাল করে খতিয়ে দেখা হবে।” তবে রেলের প্রাথমিক তদন্তের পর অনুমান, ইঞ্জিনের ট্র্যাকশন মোটর ভেঙে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

ওয়াকিবহাল মহলের একাংশের মত, বিকানের-গুয়াহাটি এক্সপ্রেসের ইঞ্জিনে কোনও সমস্যা হয়েছিল। ইঞ্জিনে কোনও যান্ত্রিক ত্রুটি হয়েই বেলাইন হয়ে যায় ট্রেনের অন্তত ১০টি কামরা। অনুমান করা হচ্ছে, এই ট্রেনে যে ইঞ্জিন ছিল তার তলার দিকে লাগানো থাকে চারটি করে ট্র্যাকশন মোটর। মনে করা হচ্ছে, চারটি ট্র্যাকশন মোটরের একটি সম্ভবত বিকল হয়ে খুলে পড়ে যা রেলের ইঞ্জিন ও রেললাইনের মাঝে আটকে যায়। তারপর সেটি ইঞ্জিন ও রেললাইনের ফিশপ্লেটের মাঝে আটকে গিয়ে ঘষা খেতে থাকে। এর কারণেই পরবর্তী ক্ষেত্রে আর এমারজেন্সি ব্রেক কষে লাভ হয়নি। একে একে লাইনচ্যুত হতে থাকে বগিগুলি। ট্রেন দুর্ঘটনার অভিজ্ঞতা ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন ওই ট্রেনের লোকো পাইলট। তাঁর কথা শুনলে শিউরে উঠতে হয়  লোকো পাইলটের কথায়, ”আচমকাই ভীষণ জোড় একটা ঝাঁকুনি লাগে৷ সঙ্গে সঙ্গে এমার্জেন্সি ব্রেক কষি৷ পিছনে কী পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, সেটা বোঝা আমার পক্ষে সম্ভব ছিল না৷ পরে দেখি পিছনের ৬ চাকা লাইনচ্যুত হয়েছে৷ আমি গাড়ি চালাচ্ছিলাম৷ ফলে ট্র্যাকশন মোটর খোলা ছিল কিনা, সেটা জানা আমার পক্ষে কোনওপক্ষেই সম্ভব ছিল না।” ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন রেলের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা। চালকের সঙ্গে দফায় দফায় কথা বলছেন তদন্তকারী অফিসাররা। কথা বলেছেন খোদ রেলমন্ত্রী৷।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট