1. multicare.net@gmail.com : সময়ের পথ :
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:২১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ আবৃত্তি প্রতিযোগীতায় প্রথম স্থান লাভ করেন জান্নাতুল মাওয়া। নওগাঁর মান্দায় ফকিন্নী নদী পুনঃখনন কাজের উদ্বোধন বগুড়া শান্তাহারে মানবিক সাহায্য সংস্থা নামের এনজিও কিস্তি না পেয়ে,মাথা ফাটিয়ে ক্যাসবক্স থেকে টাকা ছিনতাই মাকে হত্যা করে ফাঁসির নাটক সাজানোর অভিযোগ ছেলের বিরুদ্ধে নড়াগাতী থানা আওয়ামীলীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক হলেন মোঃ হাফিজুর রহমান বিপ্লব! চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের মোহাম্মদ মমিনুর রহমান এর সঙ্গে সার্ক মানবাধিকার সংগঠন এর নেতৃবৃন্দর সাক্ষাৎ। বাবর কে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আইয়ুব খান রাব্বী। “২৯ উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ” পলোগ্রাউন্ডে আঃমীলীগের জনসভায় জনতার ঢল উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলতে চাই-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ফুলবাড়ীয়ার ঐতিহ্যবাহী ২৬৩ তম হুমগুটি খেলা আনুষ্ঠিত

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০২২
  • ১৬৬ বার পড়া হয়েছে

ফুলবাড়ীয়ার ঐতিহ্যবাহী ২৬৩ তম হুমগুটি খেলা আনুষ্ঠিত

ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধি রবিউল ইসলাম হৃদয়
ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়ীয়া উপজেলার লক্ষ্মীপুরের বড়ই আটায় তালুক-পরগনার সীমানায় ঐতিহ্যবাহী হুমগুটি খেলা আনুষ্ঠিত হয়েছে।পৌষ মাসের শেষ দিনের শেষ বিকেলে খেলাটি আনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।

প্রায় তিনশো বছরের ঐতিহ্যবাহী এই খেলা বছরে একবার একই স্থানে হয়। পিতলের তৈরি প্রায় ৩৫ কেজি ওজনের গুটি আয়ত্ব করে নিজ গ্রামে নিয়ে গুম করা পর্যন্ত চলে এই খেলা।

আর এই খেলাকে কেন্দ্র করে ফুলবাড়ীয়া উপজেলায় গ্রামে চলে অন্যরকম উৎসাহ উদ্দীপনা। গোটা পরিবেশ হয়ে উঠে উৎসবমুখর। ফুলবাড়ীয়ার লক্ষীপুর ও দশ মাইলের মাঝামাঝি বড়ই আটা বন্দে (মাঠে)খেলার কেন্দ্রস্থল বিকেল চারটার দিকে খেলা শুরু হয়। সকাল থেকে ফুলবাড়ীয়া ছাড়াও পার্শবর্তী ত্রিশাল, মুক্তাগাছা উপজেলার লোকজন আসতে থাকে লক্ষ্মীপুর বড়ই আটা বন্দে।

ময়মনসিংহ-ফুলবাড়ীয়া সড়কের অদূরে ভাটিপাড়া, বালাশ্বর, তেলিগ্রামের সংযোগস্থল নতুনসড়কে লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়।মুক্তাগাছার জমিদার রাজা শশীকান্তের সাথে ত্রিশালের বৈলরের হেম চন্দ্র রায় জমিদারের জমির পরিমাপ নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হয়।

জমিদার আমলের শুরু থেকেই তালুকের প্রতি কাঠা জমির পরিমাপ ছিল ১০শতাংশে, পরগনার প্রতি কাঠা জমির পরিমাপ ছিল সাড়ে ৬ শতাংশে। একই জমিদারের ভূখণ্ডে দুই নীতির প্রতিবাদে তীব্র প্রতিবাদ গড়ে ওঠে। জমির পরিমাপ নিয়ে সৃষ্টি হয়া বিরোধ মীমাংসার জন্য লক্ষ্মীপুর গ্রামের বড়ই আটা নামক স্থানে যেখানে শুরু তালুক পরগনার সীমানা সেখানে এই গুটি খেলার আয়োজন করে।গুটি খেলার শর্ত ছিল, গুটিটি যে দিকে যাবে তা হবে তালুক, পরাজিত অংশের নাম হবে পরগনা। জমিদার আমলের গুটি খেলায় মুক্তাগাছা জমিদারের প্রজারা বিজয়ী হয়। আজও তালুক পরগনার সীমান্তের জিরো পয়েন্টে ব্রিটিশ আমলে জমিদারি খেলার গোরাপত্তন। আমন ধান কাটা শেষে, বোরো ধান আবাদের আগে প্রজাদের শক্তি পরীক্ষার জন্য জমিদারদের এই পাতানো খেলা চলছে বছরের পর বছর ধরে।

আজ শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী জমজমাট হুমগুটি খেলাকে কেন্দ্রকরে ফুলবাড়ীয়ায় মেতে উঠে লক্ষাধিক মানুষের মিলন মেলা। হুমগুটি স্মৃতি সংসদের সভাপতির উপস্থিতিতে খেলা উদ্বোধন করা হয়। ৩৫ কেজি ওজনের পিতলের গুটি ঢাক ঢোলের তালে তালে নেচে গেয়ে তালুক পরগনার সীমানায় নিয়ে আসেন এলাকাবাসী।প্রতি বছর পৌষের শেষ বিকেলের এ খেলাকে ঘিরে অতি প্রাচীনকাল থেকেই লক্ষীপুর, বড়ই আটা, ভাটিপাড়া বালাশ্বর,এগারো মাইল,নয়ানবাড়ী,মোহাম্মদনগর, শুভরিয়া, কালীবাজাইল, তেলিগ্রাম, সারুটিয়া,কুশমাইল, গড়বাজাইল, বাসনা, দেওখোলা, কুকরাইল, বরুকা, ফুলবাড়ীয়া পৌর সদর, আন্ধারিয়া পাড়া, জোরবাড়ীয়া, চৌদার, দাসবাড়ী, কাতলাসেন সহ আশে পাশের ১৪/১৫টি গ্রামে শুরু হয় উৎসবের আমেজ। ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা পড়ে নতুন জামা কাপড়, শতাধিক গরু-ছাগল জবাই হয় গ্রামের বিভিন্ন স্থানে।

গুটি খেলা এক নজর দেখার জন্য দূরদূরান্তের আত্মীয় স্বজনরাও ভীড় জমায় এ গ্রামে।এ খেলায় থাকে না কোন রেফারী। আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে কোন প্রকার বাহিনীর প্রয়োজন হয় না। বিকেল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলে খেলা। কোন কোন বছর পরদিন পর্যন্ত খেলা চলার রেকর্ডও রয়েছে। একেক এলাকার একেকটি নিশানা থাকে। ঐ নিশানা দেখে বুঝা যায় কারা কার পক্ষের লোক। গুটিটি কোন দিকে যাচ্ছে তা মুলত চিহিৃত করা হয় নিশানা দেখেই। নিজেদের দখলে নিতে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করা হয় খেলায়। এভাবে গুটিটি গুম না হওয়া পর্যন্ত চলে এ খেলা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট