1. multicare.net@gmail.com : সময়ের পথ :
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০১:০৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
বিএসএনপিএস কমিটি গঠন:সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক সাধারণ সম্পাদক শামছুল আলম রামগড়ে বিজিবির ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে উন্নয়ন মাইলফলক। এফবিজেও’র বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ৪ঠা ডিসেম্বরের মহাসমাবেশ সফল করতে নগরীর চান্দগাঁও কাপ্তাই রাস্তার মাথায় প্রচারণা ও লিফলেট বিতরণ। নওগাঁ জেলায় প্রথম স্থানীয় প্রবীণ এবং উদীয়মান শিল্পীগন দের টেলিফিল্ম। চট্টগ্রাম চান্দগাঁও থানাধীন শুকতারা পত্রিকার দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উদযাপন। কক্সবাজার রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির দায়িত্বে চেয়ারম্যান মার্শাল ও এড. অপু স্মরনকালের সেরা জনসমুদ্রে রুপ নিবে চট্টগ্রামের মহাসমাবেশ- হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর। ফখরুজ্জামান চট্টগ্রামের নতুন জেলা প্রশাসক

নওগাঁর মহাদেবপুরে বাঁশ কাটা ও ভুমি দখলে বাঁধা দিলে,রাস্তা বন্ধ ও নারী শিশু মামলা দেওয়ার হুমকি

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শনিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২২
  • ৮৮ বার পড়া হয়েছে

নওগাঁর মহাদেবপুরে বাঁশ কাটা ও ভুমি দখলে বাঁধা দিলে,রাস্তা বন্ধ ও নারী শিশু মামলা দেওয়ার হুমকি

নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি ইতিমুনি- নওগাঁর মহাদেবপুরে উপজেলার হাতুর ইউনিয়নের সাবইল গ্রামের অমুল্য বর্মনের জোরপূর্বক প্রায় ১৫/১৬টি বাঁশ কেটে ফেলেছে বলে অভিযোগ করেন পার্শবর্তী রবীন্দ্র বর্মন,তার স্ত্রী গুরুমনি ও ছেলে সুরজিৎ বর্মনের বিরুদ্ধে। বাঁধা দিতে গেলে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে নারী শিশু মামলা ও সাড়ে ১২শতক জমি জবর-দখলের হুমকি দেয় বলে অভিযোগ করেন অমুল্য বর্মন ও তার ছেলেরা।

সরেজমিনে জানা যায়, উপজেলার একই গ্রামে বসতবাড়ী দু,জনার। রবীন্দ্র বর্মনের বাড়ীর পাশে অমুল্য বর্মনের ৪১৯ দাগে ১৯ শতকে বাঁশ ঝাঁড় ও পার্শবর্তী ৪১৮ দাগে সাড়ে ১২ শতক ভিটা মাটি। মাঝে মধ্যই রবীন্দ্র বর্মন তার স্ত্রী ও ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে বাঁশ ঝাড় থেকে বাঁশ চুরি করে কেটে নেয়। এ নিয়ে দীর্ঘ দিন থেকে তাদের মধ্য কলহ চলে আসে। এক পর্যায়ে বাঁশঝাড়ের মালিককে দাবিয়ে রাখার জন্য রবীন্দ্র তার স্ত্রীকে দিয়ে একটি নারীশিশু মামলার অভিযোগ করে তাদেরকে খুব হয়রানি-পেরেশানিও করেছিলো বলে তারা জানায়।

এমতাবস্থায় গত (২০এপ্রিলে) বধুবার সকাল অনুমান সাড়ে ১১টার সময় বাঁশঝাড়ের মালিক অমুল্য বর্মন ও তার ছেলেদের সঙ্গে নিয়ে হাতে নাতে রবীন্দ্র বর্মন তার স্ত্রী ও ছেলেকে বাঁশ কাটা অবস্থায় ধরে ফেলে। তারা প্রায় ১৫/১৬টি বাঁশ কেটে ফেলেছে। এ সময় উল্টো ঝাঁড়ের মালিকদের খুন-জখমের হুমকি সহ নারীশিশু মামলার দেওয়ার হুমকি দেয়। কথা কাটা-কাটির এক পর্যায়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে পাশবর্তী সাড়ে ১২শতক জায়গাও জোর-পুর্বক দখল করে নেবে বলে হুমকি দেয়। এমন কি তাদের চলাচলের রাস্তাও বন্ধ করে দেবে।

রবীন্দ্র বর্মনের কাছে জানবার জন্য তাদের বাড়ীতে গেলে বাড়ীতে তালা ঝুলানো ও কাহকেই পাওয়া যায় না। রবীন্দ্র বর্মনের ছেলে সুরজিতের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানতে চাইলে সে অস্বীকার করে জানায়, এ জমি বিষয়ে অনেকবার মাতবর,চেয়ারম্যান নিয়ে বসা হয়েছে কোন সুরাহা হয় নাই। তাদের নিজ জায়গায় বাঁশ কেটেছে বলে জানায়। কগজপত্র নিয়ে দু,পক্ষ মানবাধিকারে ঈদের পর বসবে বলে জানায়।

আশেপাশের কয়েক জনকে এলাকার মাতবরের কথা জিজ্ঞেসা করিলে জানায়,রবীন্দ্র কাহকেই মানে না,মাতবরও নাই।

এ বিষয়ে হাতুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ এনামুল এর সাথে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার কাছে এখনো কেহ লিখিত বা মৌখিক ভাবে জানাই নাই। তারপরও বিষয়টি সমন্ধে খোঁজ-খবর নেবেন।
এদিকে অমুল্য বর্মন ও তার ছেলেরা তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা চান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট