1. multicare.net@gmail.com : সময়ের পথ :
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৫:০১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
বিএসএনপিএস কমিটি গঠন:সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক সাধারণ সম্পাদক শামছুল আলম রামগড়ে বিজিবির ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে উন্নয়ন মাইলফলক। এফবিজেও’র বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ৪ঠা ডিসেম্বরের মহাসমাবেশ সফল করতে নগরীর চান্দগাঁও কাপ্তাই রাস্তার মাথায় প্রচারণা ও লিফলেট বিতরণ। নওগাঁ জেলায় প্রথম স্থানীয় প্রবীণ এবং উদীয়মান শিল্পীগন দের টেলিফিল্ম। চট্টগ্রাম চান্দগাঁও থানাধীন শুকতারা পত্রিকার দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উদযাপন। কক্সবাজার রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির দায়িত্বে চেয়ারম্যান মার্শাল ও এড. অপু স্মরনকালের সেরা জনসমুদ্রে রুপ নিবে চট্টগ্রামের মহাসমাবেশ- হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর। ফখরুজ্জামান চট্টগ্রামের নতুন জেলা প্রশাসক

এতীম-অভিভাবকহীন ৩কন্যার রাজকীয় বিয়ে

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২২
  • ২৫ বার পড়া হয়েছে

এতীম-অভিভাবকহীন ৩কন্যার রাজকীয় বিয়ে
মোহাম্মদ মাসুদ বিশেষ প্রতিনিধি

এতীম-অভিভাবকহীন,কেউ নেই ৩কন্যার রাজকীয় বিয়ে দিয়েছেন জমকালো বর্ণাঢ্য নানা আয়োজনে অভিভাবক হিসেবে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ও সমাজসেবা অধিদপ্তর।
পেয়েছেন প্রধান মন্ত্রীর উপহারসহ নামিদামী ব্যক্তিদের উপহার- উপস্থিতি ও ছিল হাজার মানুষের রাজকীয় ভোজের সু-ব্যাবস্থ্যাসহ কমতি ছিল কোন কিছুই।

বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) রাতে চট্টগ্রাম অফিসার্স ক্লাবে উক্ত বিয়ে অনুষ্ঠান রাজকীয় আয়োজনে উৎসব মূখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়।

তিন কন্যা চট্টগ্রাম রউফাবাদ সরকারি শিশু পরিবারের (বালিকা) সদস্য। ওদের অভিভাবক সরকার। তিন রাজকন্যার রাজকীয় বিয়ে সত্যিকার অর্থেই ছিলো রাজকন্যা ছিল না কমতি কোন কিছুই।

তিন কন্যা হলো মর্জিনা আক্তার,মুক্তা আক্তার ও তানিয়া আক্তার।তাদের শিশুকালে কুড়িয়ে পাওয়া,পিতা-মাত
,আত্মীয়-স্বজন কেউ-ই নেই তাদের,এতীম ও অভিভাবকহীন। মর্জিনা আক্তারের বিয়ে হয়েছে ওমর ফারুকের সঙ্গে, মুক্তা আক্তারের নুরু উদ্দিনের সঙ্গে এবং তানিয়া আক্তারের হেলাল উদ্দিনের সঙ্গে। তিন জনের বরই স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে কর্মরত।

বিয়েতে আমন্ত্রিত হন প্রধানমন্ত্রীও। তবে প্রধানমন্ত্রী উপস্থিত থাকতে না পারলেও তিন কন্যার জন্য পাঠিয়েছেন উপহার। এছাড়া আমন্ত্রিত অতিথিরাও সবাই সাথে করে নিয়ে এসেছেন সব দামী উপহার।

নানা ধারাবাহিক আয়োজনে নিয়ন আলোতে সাজানো হয় অফিসার্স ক্লাব। আমন্ত্রিতদের জন্য আয়োজন করা হয় রাজকীয় ভোজ। মেনুতে ছিলো কাচ্চি বিরিয়ানি, চিকেন রোস্ট, কাবাব, বোরহানি, পায়েস,মিনারেল ওয়াটার। তিন কন্যা ও তাদের বরদের জন্য সাজানো হয় রাজকীয় স্টেইজ, ছিলো সেলফি জোন,মিষ্টিপানের আয়োজন চা-কফি কিছুরই কমতি ছিলো না।
এই বিয়েতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ রেজাউল করিম চৌধুরীসহ একাধিক এমপি.বিশিষ্ট রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ,সরকারী উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ প্রায় এক হাজার মানুষের জন্য ভোজের আয়োজন করা হয়।

এমন একটি বর্ণাঢ্য বিয়ে আয়োজনের জন্য চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমানের প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাতেই হয়। কোন অভিভাবকহীন এতিম মেয়ের জন্য এতোটা জমকালো বিয়ের আয়োজন আর কখনো চোখে পড়েনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় ইয়োলো হোস্ট